বাজুক বীণা Bajuk Bina by Piklu Chanda

বাজুক বীণা Bajuk Bina  Bengali Poem.Bengali readers always very conscious they loves Bengali literature by heart. The worlds best language in the sense of sweetness. So enjoy Bengali poems.

বাজুক বীণা

মৌন মিছিলের রুদ্ধদ্বার,
শেষে ভাঙ্গিবে যখন;
বয়ে গেলে কাল অকারণে,
ফিরিবে কি সে আর তখন?
দু একফোঁটা শীতল অশ্রু
গড়ায় যদি মুক্ত বাহুমাঝে!
স্পর্শ করে, হৃদয়ের স্পন্দন
ভারি হয়, মন যদি কাজে-অকাজে।

গভীর রাতের স্বপ্ন মাঝে
কিছু স্মৃতি মনে ভাসে অতীতের,
দূরে তারে ঠেলে রেখে কতকাল
বইবে একা, ছবি সুখ কিবা বিষাদের!

আষাঢ়ের অসার বারিধারাতে
হয়তবা বসন্তের আবীর খেলায়,
ভুলে তারে কত কাল রইবে বল,
যদি তরী এসে ভিড়ে মোহনায়!

যত আছে সব নাও, ঝুলি ভরি ভরি,
কিঞ্চিৎ সঞ্চয় কেন বৃথা অকারনে,
বল বড় ভালোবাসি তারে,
মিছে কাল ছুটে পাছে, ভুল অভিমানে।

একটু দাড়াও, ফিরে দেখো একবার,
অসীম আকাশের রামধনু পানে,
সপ্ত রঙ্গিন আভা প্রসারিত করি
জড়াতে তোমায় ছুঁটে, বাহুর আলিঙ্গনে

কাঙ্গাল ছিল আজও আছে-
ফিরে আসি যদি দাঁড়ায় দুয়ারে,
মুক্ত হতে শুধু জীবনের বাঁধন হতে,
বল সাধ্য কি আছে তারে রুধিবারে।

তুমি একা আছো, একাই থাকো,
জানি নির্মম নিয়তির পরিহাস।
ভাঙ্গিলে সে বাঁধ স্রোতের প্রেমে,
মৃত্যুই তার শেষ অভিলাষ!
একটু দাড়াও ফিরে আসো কাছে,
বয়ে গেলে কাল অকারণে,
ভিজে শ্রাবনের শেষ বারিধারাতে
বাজুক বীণা, চির মিলনের আলিঙ্গনে!!

পিক্লু চন্দ ২৫।০৫।২০২০

Clarification–

জীবনে চলার পথে আমরা কখনো কখনো হারিয়ে যাই নিজের গতিপথ থেকে। কারণে-অকারণে কাল যাপন করি। ব্যর্থ প্রয়াস করি, বাস্তবিক অর্থে যার কোন প্রয়োজন নাই।

কবিতার মূল তাৎপর্য এবং বিষয় হচ্ছে, অকারণে কালযাপন না করা সব সময় আনন্দ উপভোগ করা কাজকে উপভোগ করা, কাজের মাঝে নিজের সফলতাকে খোঁজা।

অনেক সময় বাস্তবিক অর্থে তা খুব কঠিন বলে মনে হয় কিন্তু যদি আমরা একটু খানি প্রয়াস করি তার সব কিছুই সহজে রপ্ত করতে পারি। শুধুমাত্র রপ্ত করার অভ্যাস টাকে গড়ে তোলা চাই।

একটা কথা মানতেই হয় সাঁতার শেখার জন্য জলের প্রয়োজন উপযুক্ত কস্টিউম কিংবা সাহায্যের প্রয়োজন নেই। জলে নামলে এমনিতেই সাঁতার শেখা হয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *